বান্দরবানে রাবার ড্যাম নির্মাণ নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ৯

প্রকাশিত: ৬:৩২ অপরাহ্ণ , মে ৪, ২০২১

বান্দরবান প্রতিনিধি:- বান্দরবানে রাবার ড্যাম প্রকল্প নির্মাণ নিয়ে শ্রমিক-স্থানীয় জনতার মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে শ্রমিকসহ ৯ জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। সোমবার (০৩ মে) সকাল ১০টার দিকে সুয়ালক ইউনিয়নের সুলতানপুর এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

আহতরা হলেন- প্রকল্পের সাইট ম্যানেজার দেলোয়ার হোসেন, স্কেভেটর চালক নূর হোসেন, মাহমুদুল হোসেন, সুমন, স্থানীয় কৃষক মো. ইউসুফ, শাকিল, আবু তাহের ও শফি আলম। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত ৪ জনকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সদর উপজেলার সুয়ালক ইউনিয়নের সুলতানপুর এলাকায় কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) অর্থায়নে ১১ কোটি ৪১ লাখ টাকা ব্যয়ে রাবার ড্যাম নির্মাণ প্রকল্পের টেন্ডার আহ্বান করা হয়। দু’বছর মেয়াদী উন্নয়ন কাজটি বাস্তবায়নের কার্যাদেশ পায় যৌথভাবে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স এম কে এন্ড এস ই। নির্মাণাধীন কাজে অনিয়মের অভিযোগ করে প্রকল্পের কাজটি বাস্তবায়নে বাঁধা দেয় স্থানীয়রা। বাঁধা দেয়ার পরও কাজটি চলমান রাখায় নির্মাণ কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের সাথে স্থানীয়দের বাকবিতন্ডা শুরু হয় এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় উত্তেজিত স্থানীয় জনতা স্কেভেটর এবং শ্রমিকদের ঘর ভাংচুর করে। এতে শ্রমিকসহ ৯ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে স্থানীয়রা আরো অভিযোগ করে বলেন, কাজের সময় উপস্থিত নেই কোন কার্যসহকারী ও প্রকৌশলীর অবস্থান। দায়িত্বরত প্রকৌশলীদের ম্যানেজ করে ঠিকাদার স্থানীয় বালু ও নিম্নমানের সামগ্রী নিমার্ণের অধিকাংশ কাজে ব্যবহার করা হয়েছে।

স্থানীয় কৃষক আব্দুস সাত্তার বলেন, কাজের গুনগতমান খারাপ হওয়ায় স্থানীয়রা চলমান কাজটি বন্ধ রাখার অনুরোধ জানায়। এতে হঠাৎ ক্ষিপ্ত হয়ে শ্রমিকরা স্কেভেটর দিয়ে এক কৃষককে আঘাত করে। পরে উত্তেজিত স্থানীয় জনতা স্কেভেটর এবং শ্রমিকদের ঘর ভাংচুর করে।

প্রকল্পের সাইট ম্যানেজার দেলোয়ার হোসেন বলেন, কাজের গুনগতমান খারাপ এমন স্থানীয়দের অভিযোগের পর শ্রমিকদের গুনগতমান বজায় রেখে নির্মাণ কাজ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। তবে বিষয়টির ব্যাপারে স্থানীয়দের সাথে সামাজিকভাবে বৈঠকও হয়েছে। তারপরও নির্মাণ কাজে বাঁধা দেয়ায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছি। দু’পক্ষের আহতদের সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঠিকাদারের সাথে চলমান কাজের গুনগতমান ও ঘটে যাওয়া ঘটনাটির ব্যাপারে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও ফোন রিসিভ না করায় তাদের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে বান্দরবান জেলা কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী প্রকৌশলী আবু নাঈম জানান, নির্মাণাধীন কাজে অনিয়মের অভিযোগে স্থানীয়দের সাথে শ্রমিকদের সংঘর্ষের খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে চলমান কাজটি আপাতত বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।